শাবি প্রতিনিধি

ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি কমাতে এ বছর প্রথমবারের মতো ২০টি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। আগামী রবিবার (১৭ অক্টোবর) ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে এ পদ্ধতির যাত্রা শুরু হবে। এই দিন দুপুর ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত দেশের ২৬টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রে বিজ্ঞান অনুষদে ভর্তিচ্ছু স্নাতক প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষা শুরু হওয়ার ১ ঘণ্টা পূর্বে পরীক্ষা কেন্দ্রে উপস্থিত থাকতে হবে শিক্ষার্থীদেরকে।

ভর্তি কমিটির সূত্রে জানা যায়, এবছর গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে প্রাথমিকভাবে আবেদন করেন মোট ৩ লাখ ৬১ হাজার ৪০৬ শিক্ষার্থী। প্রাথমিক বাছাই প্রক্রিয়া শেষে পরীক্ষায় অংশ নিতে চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত হন মোট ২ লাখ ৩২ হাজার ৪৫৫ জন। যার মধ্যে বিজ্ঞান শাখায় ‘এ’ ইউনিটে মোট বাছাইকৃত হয়েছেন ১ লাখ ৩১ হাজার ৯০১ জন। মানবিক শাখায় ‘বি’ ইউনিটে ৬৭ হাজার ১১৭ জন এবং বাণিজ্য শাখায় ‘সি’ ইউনিটে ৩৩ হাজার ৪৩৭ জন। এই তিন ইউনিটের সর্বমোট আসনসংখ্যা ২২ হাজার ১৩টি। সে হিসাবে গড়ে প্রতি আসনে লড়বেন ১১ জন পরীক্ষার্থী। এছাড়া আগামী ২৪ অক্টোবর ‘বি’ ইউনিট ও ১ নভেম্বর ‘সি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

সূত্রে আরো জানা যায়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ও সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের ২৬টি বিশ্ববিদ্যালয়ে এ ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। অন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হলো, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, শেরে-ই বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

উপাচার্যদের সমন্বয়ে গঠিত ভর্তি পরীক্ষার কোর কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ দেশ রূপান্তরকে বলেন, পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে শেষ করতে সব প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। ভর্তি জালিয়াতি ঠেকাতে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীসহ গোয়েন্দা বিভাগ সর্তক অবস্থানে রয়েছেন। করোনা সংক্রমণ রোধে সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রতিটি কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

ভর্তি পরীক্ষা শেষে শিক্ষার্থীরা কীভাবে পছন্দের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভর্তি হবেন তা জানতে চাইলে উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, গুচ্ছ পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো তাদের চাহিদা অনুযায়ী আলাদা আলাদা ভর্তি বিজ্ঞপ্তি দিবে। এ বিজ্ঞপ্তি অনুসারে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভর্তি হতে পারবেন।